নেক্সাস - মোহাম্মদ নাজিমুদ্দিন Nexus by Mohammod Nazim Uddin

নেক্সাস - মোহাম্মদ নাজিমুদ্দিন Nexus by Mohammod Nazim Uddin

নেক্সাস
মোহাম্মদ নাজিমুদ্দিন 
বাতিঘর প্রকাশনী


মোহাম্মদ নাজিমুদ্দিনের বেগ বাস্টার্স সিরিজের তৃতীয় উপন্যাস। আমি আগে না দেখেই এটা পড়া শুরু করেছি, তাই আগের গুলো এখনও পড়া হয়নি। পড়ে যা মনে হলো ঢাকার হোমিসাইড বিভাগের ডিটেকটিভ জেফরি বেগ এর থেকে বেগ, আর এক খুনির নাম থেকে বাস্টার্ডস। তার সাথে এর আগেও কিছু হয়েছে এখানেও আছে, পরেও থাকবে হয়তো। গল্প শুরু হয় সেন্ট অগাস্টিন স্কুলের টয়লেটে স্কুলের ক্লার্ক হাসানকে মৃত অবস্থায় পাওয়া গেলে। সেটার তদন্ত করতে গিয়ে কেঁচো খুঁড়তে কেউটে বেরিয়ে আসে। যাই হোক, সেন্ট অগাস্টিনের মতো স্কুল যেখানে হোমরা চোমরা দের ছেলে মেয়ে পড়ে, সেখানে সিসিটিভি ক্যামেরা নেই? খুব বেশি আগের নভেল তো না। এখানে তো সব হাইস্কুলেই প্রায় সিসিটিভি ক্যামেরা আছে একটু শহরের দিকে, আমি যে সরকারি স্কুল গুলোতে পড়েছিলাম সেখানেও ছিল। অবশ্য এটা বাংলাদেশ এর ঢাকা, ওখানে কিরকম কী জানিনা। সিসিটিভি থাকলে একটু জলদি কেস সলভ হতো, কয়েকটা পেজ কমতো আর কী 🥲 সাইজ তো অনেক বানিয়েছে। বাকি সব ভালোই লেগেছে। পর্যবেক্ষণটা প্রশংসনীয়। তবে আমার চিন্তা মূল বিষয় থেকে অন্যদিকে চলে যায়। জেফরি বিদেশে গেছে, এখানে এখন চাকরি করে, অনেকটাই সিনিয়র মনে হলো জুনিয়র অন্যরা। এখনও রেবার সাথে প্রেম করে সেই কলেজ টাইম থেকে। মানে ক্লাসমেট বা সিনিয়র জুনিয়র। জুনিয়র হলেও রেবার বয়স নেহাত কম নয়, তাও বাংলাদেশ এর মত জায়গায় বাড়ি থেকে বিয়ে নিয়ে কিছু বলেনা? জেফরির সাথে এখনও ঘুরে ঘুরে প্রেম করে! অবাস্তব বলছি না কিন্তু uncommon আর কী , তার উপর বাবা অসুস্থ। অন্য গল্প গুলোতে এটা নিয়ে কিছু আছে কিনা জানিনা, তবে এখানে এইটা দেখে মনে হলো কতো ভালো বাড়ির লোক গুলো। :)
বইটি দেওয়ার জন্য বর্ণপরিচয়কে ধন্যবাদ। 
রিভিউটি লিখেছেনঃ নন্দিনী

বইয়ের নাম : নেক্সাস 
লেখক : মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন
প্রকাশক : বাতিঘর প্রকাশনী, ঢাকা

নেক্সাস শব্দটির আক্ষরিক অর্থ যোগসূত্র। বাস্টার্ড সিরিজ এর তৃতীয় বই এটি।
ঢাকা শহরের অভিজাত স্কুল সেন অগাস্টিন -এ খুন হয় একজন জুনিয়র ক্লার্ক হাসান। 
খুনের ঘটনা তদন্তে আসেন হোমিসাইড ডিপার্টমেন্ট এর সিনিয়র অফিসার জেফরি বেগ। 
শুরুতে কোনো সূত্রই খুঁজে পাচ্ছিল না জেফরি।  কিন্তু দমে যাবার পাত্র নয় সে।। হঠাৎ উদ্ভাসিত হল একটি সূত্র- সেন্ট অগাস্টিন স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র তূর্যকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।
 কেউ বা কারা যেন ছদ্মবেশ ধরে স্কুলে প্রবেশ করে তাকে অপহরণ করেছে। অপহরণের দিন একই সময় খুন হয়েছিলেন হাসান সাহেব।  তাহলে  কি হাসান সাহেবের হত্যা রহস্যের সাথে তূর্য অপহরণের কোনো যোগসূত্র আছে?
প্রবল আত্মবিশ্বাসের সাথে তদন্ত চালিয়ে গেল জেফরি। একের পর এক উন্মোচিত হতে থাকল রহস্য, রহস্য তো নয় যেন অদ্ভূত কতগুলো জটিল নেক্সাস। কিন্তু জেফরি  কি ঘুণাক্ষরেও ভেবেছিল, সামান্য এক জুনিয়র ক্লার্কের হত্যা রহস্যের তদন্ত  করতে গিয়ে মুখোমুখি  হতে হবে দেশের  সবচেয়ে ক্ষমতাবান এক মন্ত্রীর  সাথে? 
সবচেয়ে বড় কথা, এই কেসের সাথে প্রোফেশনাল  কিলার বাস্টার্ডের যোগসূত্র কী? 
প্রশ্নগুলোর উত্তর খুঁজতে হলে আপনাকে পড়ে ফেলতে হবে শাসরুদ্ধকর এই থ্রিলার বইটি। দুর্দান্ত প্লট আর সাবলীল বর্ণনা শৈলীর মাধ্যমে লেখক নাজিমউদ্দিন আপনাকে নিয়ে যাবে শাসরুদ্ধকর এক জগতে, যেখানে অনেকগুলো ক্রাইম নানা যোগসূত্রের হাত ধরে মিলিত হয়েছে  একটি কেন্দ্রবিন্দুতে!
বাংলা সাহিত্যে  অনেক বছর ভালোবাসায় বেঁচে থাকুক বেগ-বাস্টার্ড কেমিস্ট্রি।

রিভিউটি লিখেছেনঃ J@sh$:

Post a Comment

0 Comments