মাংস লতার কৃষ্ণকলি || সৈকত মুখোপাধ্যায়

মাংস লতার কৃষ্ণকলি || সৈকত মুখোপাধ্যায়

মাংস লতার কৃষ্ণকলি || সৈকত মুখোপাধ্যায় 

বইয়ের নাম -- মাংসলতার কৃষ্ণকলি 
বইয়ের লেখক -- সৈকত মুখোপাধ্যায় 
প্রকাশনীর নাম -- দীপ প্রকাশন 
মূল্য -- ১৮০ টাকা

মাংসলতার কৃষ্ণকলি সৈকত মুখোপাধ্যায়ের লেখা ছয়টি প্রাপ্তবয়স্ক অন্ধকার গল্পের সংকলন। গল্পগুলি হল উল্কাপাতের মাঠ, ফেরিওলা ব্যাং কাটার ক্লাস, ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন, বেদিয়াটোলার বিদেহী, ওরা জোকারের শিকার এবং মাংসলতার কৃষ্ণকলি।
প্রচ্ছদ এঁকেছেন সৌম্যদীপ প্রধান। প্রচ্ছদটি একটি উদ্ভিদের যাকে পিছন থেকে ধরে রেখেছে এক মানবশরীর। আর প্রতিটি গল্পের মাঝে মাঝে সাদাকালো ছবিগুলো আমাদের মনের সাদাকালো দিক তুলে ধরে।
উল্কাপাতের মাঠ --- স্ত্রী কে হত্যা করার পর বাইশে এপ্রিল অরিত্র আত্মহত্যা করতে আসে যোশিমঠ আউলি রোডের ধারে একটি জঙ্গলে। সেখানে তার সাথে একটি লোকের আলাপ হয় যে অরিত্র কে একটি বিশাল উল্কাপিন্ডের কাছে নিয়ে আসে। তারপর কী হয়? | উল্কাপিন্ডের রহস্যটাই বা কী? শেষ দিকের টুইস্ট টা দারুন। ফেরিওলা ---- ফেরিওলাদের আমরা সকলেই চিনি আর ফেরিওলাদের ডাক শুনে আমরা অভ্যস্ত। কিন্তু সোমুর অসুস্থ বাবা কেন একটি ফেরিওলাকে ভয় পায়? ফেরিওলাটি শুধু পুরোনো জিনিস কেন কেনে? উত্তর আছে " ফেরিওলা" গল্পে
ব্যাং কাটার ক্লাস - শ্রীধরপুর শহরের সরোজিনী বালিকা বিদ্যালয়ের ক্লাস নাইনের কেয়া মুস্তাফির সাথে বায়োলজির ল্যাবরেটরি অ্যাসিস্ট্যান্ট গৌরহরির ছেলে পেখমের প্রথম সাক্ষাৎ আর ক্লাস টুয়েলভের কেয়া মুস্তাফির সাথে পেখমের পুনরায় সাক্ষাতের মধ্যে আকাশ পাতাল পার্থক্য। ব্যাং কাটার ক্লাসে ঠিক কী কী হয়েছিল? ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন ---- টুম্পা তড়িৎবাবুর সন্তানের সারোগেট মা হতে চলেছে। তাই সে তার ছেলে কানুকে নিয়ে তড়িৎবাবুর বাড়িতে বাস করছে। কিন্তু টুম্পাকে কে মারতে চায়? আর স্পয়লার দেওয়া যাবে না!!!
বেদিয়াটোলার বিদেহী- - পাটনা শহরে সুমন আর মানিক নামের দুই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের কর্মচারী বেদিয়াটোলায় এক বিদেহীর দেখা পায়। সেই বিদেহীর মুক্তির কথা বলেছেন লেখক। গল্পটা পড়লে চোখ ভিজে আসতে বাধ্য।
ওরা জোকারের শিকার ---- সাতশিমুলী শহরের অ্যাডোলেসেন্ট ছেলেমেয়েদের সাথে ঠিক কী কী হয়েছিল? তাদের হঠাৎ মৃত্যুর কারণ কী? সব উত্তর আছে "ওরা জোকারের শিকার" গল্পে।
মাংসলতার কৃষ্ণকলি ---- এটি প্রচ্ছদ কাহিনী। সোমক লাহিড়ী এসেছে মার্কারিড গ্রহে হারিয়ে যাওয়া দুজন মানুষের সন্ধানে। সোমক কি তাদের খুঁজে পেল? এই গল্প পড়ে মানুষের স্বার্থপরতা আর নৃশংসতার পরিচয় পাওয়া যায়।
এই বইটির প্রতিটি গল্প পাঠককে ভাবতে শেখায়। মানুষের মনের আদিম কুৎসিত অন্ধকার দিক তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন লেখক। কিছু গল্প অবাস্তব লাগতে পারে কিন্তু বাস্তব আর অবাস্তবের মিশেল হতে কতক্ষন। একবার সময় করে পড়ে নিন " মাংসলতার কৃষ্ণকলি"।

রিভিউটি লিখেছেনঃ OLI

বইটি পড়ার লিস্টে এতটাই ওপরে ছিল যে আজ পড়া শুরু করেছি।

৭খানা থ্রিলারে সমৃদ্ধ এই গল্পসংকলন নিয়ে যা প্রত্যাশা ছিল, তা লেখক ছাপিয়ে গিয়েছেন।

লেখকের আগের ঈশ্বরের নষ্ট ভ্রূণ যারা পড়েছেন তারা জানেন ডার্ক সাইকোলজিকাল থ্রিলার রচনায় সৈকত বাবুর হাত কিরকম পোক্ত।

আমি বলবো, যাদের পড়া নেই, তারা আগে ওই বইটি পড়ে তারপর এই বইখানা পড়বেন।

বইটি শেষ করে উঠে অদ্ভুত ঘোরের মধ্যে আছি। আমার মতো থ্রিলারপ্রেমীদের অবশ্যপাঠ্য।

🙏🙏🙏

Post a Comment

0 Comments