ক্ষপা - পরিক্ষিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় Khapa by Parikshit Bandopadhyay

ক্ষপা - পরিক্ষিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় Khapa by Parikshit Bandopadhyay

বইয়ের নাম- ক্ষপা
লেখক- পরিক্ষিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় 

বইটিকে ক্রাইম থ্রিলার বলা যায় নাকি কনফেশনাল থ্রিলার বলা যায় আমি জানি না। মাত্র ষাট পাতার একটি বই। প্রচ্ছদ দেখে আন্দাজ করেছিলাম তন্ত্র মন্ত্র বা স্যাটানিক কাল্টের ওপর কোনো বই হবে। বইয়ের শুরুতেই আবার লেখক সতর্ক করে দিয়েছেন বীভৎস রস ও শ্রুতি কটু ভাষার প্রয়োগ থাকবে গল্পে। এই রকম গল্প আমার সাধারণত ভাল লাগে না। তাই সব মিলিয়ে বইটি ভাল লাগবে প্রত্যাশা করিনি। তবুও হাতের সামনে যাই পাই তাই পড়ে ফেলার অভ্যেস বশত পড়তে শুরু করি। বলতে দ্বিধা নেই যে গল্পটি পড়ার ওই মিনিট কুড়ি সময় আমি অন্য কোনদিকে মন দিতে পারিনি, একটানায় বইটি পড়ে গিয়েছি।

      বইয়ের সারসংক্ষেপ বলব না, বললে হয়ত পুরো গল্পটিই বলে দিতে হয়। তাই শুধু এটুকুই বলব যে গল্পটি আসলে একজন সাইকোপ্যাথ কিলারের জবানবন্দি। গল্পে তন্ত্র মন্ত্র নেই, স্যাটানিক কাল্টও নেই। তবে শয়তান অবশ্যই উপস্থিত রয়েছেন, মানুষের মনের অন্ধকারের রূপ নিয়ে।

       লেখকের উপস্থাপন কৌশল অসাধারণ। যেভাবে গল্পটিকে সাজিয়েছেন, ধাপে ধাপে গল্পের মুখ্য চরিত্রের মনের অন্ধকারের মধ্যে পাঠকদের নিয়ে গিয়েছেন তা সত্যিই প্রশংসনীয়। বীভৎস রস, গা ঘিনঘিনে বর্ণনা, অশ্রাব্য ভাষা- সবই রয়েছে, কিন্তু লেখকের উপস্থাপনের মুন্সিয়ানায় তা বিবমিষার উদ্রেক করে না কারণ পাঠক গল্পের মধ্যে মশগুল হয়ে থাকেন এবং অনুভব করতে পারেন এই সমস্ত বর্ণনা ভীষণ রকমের সত্যি। এই গল্প শুধু এক সাইকোপ্যাথকে নিয়ে নয়, এ গল্প আমাদের সমাজকে নিয়েও। সাইকোপ্যাথের সাইকোপ্যাথ হয়ে ওঠার পেছনে আমাদের সমাজের যে অন্ধকার মনস্তত্ব কাজ করে লেখক গল্পের শেষভাগে গিয়ে অত্যন্ত সাবলীলভাবে সেই চিত্র এঁকেছেন। শেষের টুইস্টখানিও ছিল সম্পূর্ণ অপ্রত্যাশিত। খারাপ লাগার জায়গা বিশেষ নেই। একটা জায়গা শুধু খটমট লেগেছে একটি। 'ছিদাম' আসলে কারুর নাম হয় না, 'শ্রীদাম' নামটির বিকৃত রূপ হচ্ছে 'ছিদাম'। সেখানে একজনের ভাল নাম রাখা হচ্ছে 'ছিদাম'-  ব্যাপারটা কেমন একটু লাগল। জানি না এর মাধ্যমে অন্যকিছু ইঙ্গিত করতে চেয়েছেন কিনা, হয়ত আমিই বুঝতে পারিনি।

    যাইহোক, সব মিলিয়ে আমি গল্পটি নিঃসন্দেহে উপভোগ করেছি এবং যারা এই ধরণের গল্প ভালোবাসেন, তাদের পড়ে দেখতে বলব।
রেটিং: ৭/১০

Post a Comment

0 Comments