অন্ধ আততায়ী - মার্গারেট অ্যাটউড / শওকত হোসেন Blind Assassin

অন্ধ আততায়ী - মার্গারেট অ্যাটউড / শওকত হোসেন Blind Assassin

যুদ্ধ শেষ হবার দশদিন পর আমার বোন লরা গাড়িসহ একটা সেতুর ওপর থেকে উল্টে পড়ে গেল।’ এভাবেই শুরু হয়েছে মার্গারেট অ্যাটউডের হতবুদ্ধিকর উপন্যাস ‘দ্য ব্লাইন্ড অ্যাসাসিন’ (অন্ধ আততায়ী)। লরা চেজের বড় বোন আইরিসম আঠার বছর বয়সে বিয়ে হয়েছিল রাজনতিকভাবে বিখ্যাত শিল্পপতির সঙ্গে, এখন তার বয়স বিরাশি বছর, এবং অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল। প্রথম বিশ্বযুদ্ধ পূর্ববর্তী সমৃদ্ধ পরিবারের প্রভাবাধীন পোর্ট টিকোনডেরোগা শহরে বাস করছে ও। আপন অবিশ্বস্ত শরীরের সঙ্গে তাল মেলানোর অবসরে আইরিস ফিরে তাকায় ওর উদাহরণের অতীত কৈশোর-যৌবন, বিশেষ করে বোনের করুণ মৃত্যুকে ঘিরে রাখা ঘটনা প্রবাহের দিকে। এসবের প্রধানতমটি হচ্ছে দ্য ব্লাইন্ড অ্যাসাসিন (অন্ধ আততায়ী) উপন্যাসের প্রকাশনা, যা মৃত লরাকে কেবল কুখ্যাতিই এনে দেয়নি, জুটিয়েছে ভক্তকূলও। যেমন বলছে আইরিস : ও স্বয়ং বাস করছে লরার দীর্ঘ ছায়ার নীচে।


সময়ের বিচারে অশ্লীলতার অভিযোগে অভিযুক্ত ‘দ্য ব্লাইন্ড অ্যাসাসিন’ (অন্ধ আততায়ী) উন্মাতাল তিরিশ দশকে এক তরুণী আর পলাতক এক তরুণের ঝুঁকিপূর্ণ প্রণয় কাহিনী তুলে ধরেছে। ভাড়া করা বিভিন্ন রুমে গোপন অভিসারের সময় ডিক্রন গ্রহের পটভূমিতে পাল্প ফ্যান্টাসি রচনা করে ওরা। কল্পিত কাহিনী যখন ভালবাসা, উৎসর্গ আর বিশ্বাসঘাতকতার ভেতর দিয়ে অগ্রসর হচ্ছে, বাস্তহবেও ঘটতে থাকে তাই; দুটো গল্পই ঘটনাপ্রবাহ এগিয়ে যায় বৈরিতা আর ধ্বংসের দিকে। পালাক্রমে কাব্যময়, অবিশ্বাস্য, ভয়ঙ্কর, অপ্রতিরোধ্য, কৌতুকময় এই উপন্যাসের গভীর রসবোধ আর করুণ নাটকীয়তায় পরিপূর্ণ।

Or

Previous
Next Post »
iklan banner